ইতিহাস নিয়ে পড়ার ভবিষ্যৎ

ইতিহাস নিয়ে পড়ার ভবিষ্যৎ The future of history students

Table of Contents সূচিপত্র

ইতিহাস নিয়ে পড়ার ভবিষ্যৎ

আসসালামুআলাইকুম 🥰আশা করি সবাই ভালো আছেন আমি আজকের ভিডিওতে ইতিহাস ,ইতিহাস সাবজেক্ট নিয়ে পড়লে ভবিষ্যতে কি কি করা যায় এবং কি কি সুযোগ সুবিধা রয়েছে এবং কি কি ডিগ্রি অর্জন করলে আমরা ইতিহাস বিষয়ের পেছনে কি কি চাকরি পাব কি সুযোগ সুবিধা খুব সহজে আমরা পেতে পারি এবং আমাদের জন্য কি কি নির্ধারিত কাজ বা

 চাকরি রয়েছে আমরা সেগুলো নিয়ে কথা বলার চেষ্টা করেছি এবং শিক্ষকতা নিয়ে কিছু কথা বলার চেষ্টা করেছি ইতিহাস বিষয়ের পিছনে আর ইতিহাসের জন্য কি কি কোথায় পড়ালেখা করলে কি কি ডিগ্রি অর্জন করলে বেশি সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যায় সে বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছি । আশা করি ভালো লাগবে । চলুন শুরু করি ।আর যারা আমার  আগের পার্টগুলা দেখেন নাই দেখে আস্তে পারেন ক্লিক করে

ইতিহাস নিয়ে পড়ার ভবিষ্যৎ কিছু ভুল ধারণা

আমরা আমাদের আশপাশে বেশিরভাগ সময়েই শুনতে পাই যে আর্টস নিয়ে পড়ে শুধুমাত্র শিক্ষকতাকেই পেশা হিসেবে নেওয়া যায়, তাই আর্টস পড়ার পর তেমন কোনাে ভবিষ্যৎ নেই, ইত্যাদি ইত্যাদি।
কিন্তু এগুলি সবই ভ্রান্ত ধারণা। অধ্যাবসায়, ইচ্ছা, এবং নিজের পছন্দের পেশার সন্ধান করতে পারাটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, তাই যারা ইতিমধ্যেই আর্টস নিয়ে উচ্চমাধ্যমিক দিয়ে দিয়েছ তারা দেখে নাও যে সত্যি তােমরা তােমাদের বিষয় নিয়ে কিভাবে কোন দিকে এগােতে পারাে।

উচ্চমাধ্যমিকে আর্টস নিয়ে পড়ে গ্র্যাজুয়েশনে কিকি পড়াশােনা করা যায়?

আমরা সবাই জানি – আর্টসের ৩ টি ডিগ্রী হয়।
১. B.A জেনারেল (ব্যাচেলর অফ আর্টস)।
২. B.A (অনার্স) যে কোনাে একটা সাবজেক্ট এ স্পেশালাইজেশন করে।
৩. BRS (ব্যাচেলর ইন রুরাল স্টাডিস), এটা শুধু মাত্র বিশ্বভারতীতেই পড়ানাে হয়।
[BRS (ব্যাচেলর ইন রুরাল স্টাডিস) – এটাই তােমাদের কাছে একটু নতুন হবে। এটা আসলে একটা ৩ বছরের ডিগ্রী কোর্স, যেখানে রুরাল ইকোনমি, স্ট্যাটিসটিক্স , কো -অপরেশন পঞ্চায়েত, animal husbandry, হর্টিকালচার, এগ্রিকালচার , এন্টারপ্রেনিউরশিপ বিষয়ে পড়ানাে হয়।]

ইতিহাস নিয়ে অনার্স পড়ে ক্যারিয়ার

ইতিহাস নিয়ে পড়ে ক্যারিয়ার কি বা ভবিষ্যতে কি কাজের সুযােগ পাওয়া যায়?

১. আর্কিওলজিস্ট
ইতিহাস নিয়ে পড়ার ভবিষ্যৎ

ইতিহাস নিয়ে গ্র্যাজুয়েশন করে মাস্টার্সে আর্কিওলজি পড়ে আর্কিওলজিস্ট হওয়া যায়। ইতিহাসে গ্র্যাজুয়েশনর পরই MA তে আর্কিওলজি পড়া যায়।

ক্যালকাটা ইউনিভার্সিটিতে ও বিশ্বভারতীতে পড়ানাে হয়। পাস্ করার পর আর্কিওলজিস্ট হিসেবে কাজ করা যায়।

 

আর্কিওলজিস্টদের কাজ কি?

আর্কিওলজিস্টরা অনেক বিষয় নিয়ে স্পেশালি কাজ করতে পারে , যেমন কেউ excavation অর্থাৎ মাটির তলা থেকে প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন বের করার কাজ করে থাকে আবার অনেকে coin স্পেশালিস্ট হয়, আবার অনেকে এপিগ্রাফিস্ট মানে পুরােনাে নথি আবিষ্কারের কাজ করে থাকেন।

সাধারণত সরকারি উদ্যোগেই এই কাজ হয়ে থাকে। আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া আর্কিওলজিস্টদের নিয়ােগ করে।

ভারতে প্রায় ৩৬০০ টা মনুমেন্ট আছে যেগুলাে রাজ্য সরকারের তত্ত্বাবধানে থাকে, এই সমস্ত মনুমেন্ট এর রক্ষনাবেক্ষনের ভার আর্কিওলজিস্টদের

২. Musiology/মিউসিওলজি
পড়তে গেলে কি যােগ্যতা লাগে?

ইতিহাসে ব্যাচেলর ডিগ্রী অনার্স নিয়ে বা মাস্টার্স ডিগ্রী থাকলে তবেই মিউসিওলজি পড়ার জন্য apply করা যাবে।অর্থাৎ কোনাে ভাবেই উচ্চমাধ্যমিক দিয়ে পড়া যাবেনা।
ক্যালকাটা ইউনিভার্সিটিতে – ৩০ টা আসন।
মিউসিওলজিস্টদের কাজ কি?
যারা মিউজিয়াম এর ডিজাইন, রক্ষনাবেক্ষনে স্পেশালিস্ট হতে চায় তাদের মিউসিওলজি পড়তে হবে।
কোথায় পড়ানাে হয়?

ক্যালকাটা ইউনিভার্সিটি ও রবীন্দ্রভারতী ইউনিভার্সিটিতে মিউসিওলােজিতে MA/M.Sc পড়ানাে হয়।
ভর্তি হবার পদ্ধতি
মেধাভিত্তিক ও অ্যাডমিশনটেস্ট ভিত্তিক। সেই বিষয়ে নির্দিষ্ট তথ্য ইউনিভার্সিটি প্রতি বছর জানিয়ে দেয়।
বিশদে জানতে ক্যালকাটা ইউনিভার্সিটির নিজস্ব নিচের ওয়েবসাইট দেখুন –
https://web.archive.org/web/20181126002816/http://www.caluniv.ac.in:80/CBCS-PG/Museology.pdf

 

৩. আর্কিভিস্ট (archivist)
ইতিহাস নিয়ে পড়ার ভবিষ্যৎ
আর্কিভিস্ট (archivist) পড়তে গেলে কি যােগ্যতা লাগে?

আর্কিভিস্ট হবার জন্য ইতিহাসের মতাে বিষয়ে গ্র্যাজুয়েশন থাকলে তবেই পড়তে পারবে। তবে শুধু ইতিহাস নয় আরাে বেশ কিছু বিষয়ে গ্র্যাজুয়েশন করলেও আর্কাইভ সায়েন্স নিয়ে মাস্টার্স পড়া যায়।
আর্কিভিস্টদের কাজ কি?
বহু শতাব্দী পুরােনাে পান্ডুলিপি, (হাতে লেখা অমূল্য নথিপত্র, বই), পুরােনাে কাগজপত্র, বই, এর রক্ষনাবেক্ষন, সেগুলির সংরক্ষণ করে রাখাই আর্কিভিস্টদের কাজ। তারা মিউজিয়ামে, লাইব্রেরিতে, ন্যাশনাল আর্কাইভ অফ ইন্ডিয়াতে, বিভিন্ন রাজ্য আর্কাইভে কাজ করেন।

৪. মিউজিয়াম কিউরেটর
ইতিহাস নিয়ে পড়ার ভবিষ্যৎ
মিউজিয়াম কিউরেটর - পড়তে গেলে কি যােগ্যতা লাগে?

ইতিহাসে ব্যাচেলর ডিগ্রী অনার্স নিয়ে বা মাস্টার্স ডিগ্রী থাকতে হবে।
কোথায় পড়ানাে হয়?
ক্যালকাটা ইউনিভার্সিটিতেই সবচেয়ে ভালাে পড়ানাে হয় মিউসিওলজি সম্বন্ধীয় যাবতীয় কোর্স।
মিউজিয়াম কিউরেটরদের কাজ কি?
মিউজিয়াম কিউরেটরদের কাজ হলাে পুরােনাে ধাতব পদার্থ, টেরাকোটা, টেক্সটাইল ছবি রক্ষনাবেক্ষন করা। মিউসিওলজি পড়েই মিউজিয়াম কিউরেটর হওয়া যায় কিন্তু সবই মাস্টার্স ডিগ্রী। অর্থাৎ কোনাে বিষয় নিয়ে গ্র্যাজুয়েশন করার পরই এই সমস্ত বিষয় নিয়ে পড়া যাবে এবং তারপর চাকরির সুযােগ আছে।

 

এ ছাড়াও ইতিহাস নিয়ে পড়ে ঐতিহাসিক, ইতিহাসবিদ, শিক্ষক, সিভিল সারভেন্ট হওয়া যায়।

ইতিহাস অনার্স নিয়ে ভবিষ্যতে কি কি হতে পারবো ?

আপনি গ্রাজুয়েশন কমপ্লিট করলে সব রকম চাকরি করার সুযোগ পাবেন। কারন উচ্চ পর্যায়ের চাকরিতে সাবজেক্ট কোন ব্যাপার না। শুধু বিষয় ভিত্তিক চাকরি করতে পারবেন না। যেমন : ইঞ্জিনিয়ার, ডাঃ, হিসাব রক্ষক, এডভোকেট, আইটি অফিসার, প্রোগ্রামার ইত্যাদি।

এছাড়া সব চাকরী করতে পারেবেন। যেমন: প্রাইমারি স্কুল শিক্ষক, হাই স্কুল শিক্ষক, কলেজ লেকচারার, ব্যাংক জব, বিসিএস, সাব ইন্সপেকটর, ফেমিলি প্লানিং, হেলথ এসিস্ট্যান্ট, এনজিও, কোম্পানি ইত্যাদি।এ ছাড়াও ইতিহাস নিয়ে পড়ে ঐতিহাসিক, ইতিহাসবিদ, শিক্ষক, সিভিল সারভেন্ট হওয়া যায়।

ইতিহাস বিষয় নিয়ে পড়াশোনা করলে ভবিষ্যতে কী কী চাকরি পাওয়া যেতে পারে?

what are some careers in history ?

এ ছাড়াও আরো অনেক ।যেমন- 

  1. Historians
  2. History experts
  3. Teachers
  4. Civil services
  5. Park ranger
  6. Museum archivist.
  7. Librarian
  8. Writer or editor.
  9. Business consultant.
  10. Lawyer.
  11. Researcher.
  12. Historian.
  13. Journalist
  14. Writer
  15. Analyst
  16. Diplomat

কেউ যদি ইতিহাস শিক্ষকতা কে পেশা হিসাবে নিতে চান তবে তার জন্য নিম্ন লিখিত সুযোগ গুলো আছে

  1. উচ্চ মাধ্যমিকে সর্বনিম্ন ৫০ শতাংশ নম্বর থাকলে আপনি ডি এল এড করে প্রাথমিক স্কুলে শীক্ষাকতার জন্য পরীক্ষা দিতে পারবেন এবং এর প্রসেস হলো ~ উচ্চ মাধ্যমিক> ডি এল এড> প্রাইমারীর পরীক্ষা> ইন্টারভিউ> তারপরেই চাকরি।

2. গ্রাজুয়েশন করার পর আপনি যদি বি এড করেন তবে একই ভাবে আপনি মাধ্যমিক স্তরে শীক্ষাকতা করতে পারেন প্রসেস একই।

3. আপনি যদি মাস্টার্স করে থাকেন তবে আপনি উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে শীক্ষাকতা করতে পারেন তবে এক্ষেত্রেও বি এড থাকা জরুরি আর নিয়োগ পদ্ধতি প্রথমের মতই।

 

4. এবার আপনি যদি বি এড কলেজে পড়াতে চান তবে আপনাকে এম এ করার পর বি এড করতে হবে তারপর এম এড করতে হবে এবং এখন নেট/সেট পাস করতে হবে তবেই আপনি ইন্টারভিউ দিতে যেতে পারবেন এবং চাকরি পেতে পারবেন।

5.আপনি যদি কলেজে পড়াতে চান সেক্ষেত্রে আপনাকে এখনকার নিয়ম অনুযায়ী প্রথমে মাস্টার্স কমপ্লিট করতে হবে তারপর নেট বা সেট পাস করতে হবে এটা এখন আবশ্যিক, তারপর আপনি কলেজ সার্ভিসের ইন্টারভিউ বোর্ডে যেতে পারেন, তাছাড়া আপনি নেট বা সেট পাস করলে পি এইচডি ও করতে পারেন আপনার নিজের বিষয়ের উপর।

6. এছাড়াও আপনি ইতিহাস নিয়ে পড়লে বিভিন্ন প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষা গুলোতে বসতে পারেন তাতে মিনিমাম কোয়ালিফিকেশন বি এ পাস হতে হবে। ভারতের সমস্ত চাকরির পরীক্ষাতেই ইতিহাস বিষয়টি থাকে, সুতরাং ইতিহাস নিয়ে পড়লে আপনি অনেক রকমের চাকরির যোগ্যতা অর্জন করতে পারবেন।

ইতিহাস নিয়ে পড়লে উচ্চস্তরে অনেক সুযোগ সুবিধা আছে।


যাইহোক ইতিহাস পড়ুন, জানুন, সত্য কে জানার চেষ্টা করুন। ভালো থাকবেন। ধন্যবাদ!

ইতিহাস পরলে নিম্নলিখিত জায়গায় কাজের সুযোগ পাওয়া হয় -বিস্তারিত জানুন -

১. স্নাতক / স্নাতকত্তর স্তরে মাধ্যামিক ও উচ্চ মাধ্যামিক স্তরে শিক্ষকতা করার সুযোগ পাওয়া যায়।
২. ইতিহাস সাধারণ জ্ঞ্যান এর মধ্যে একটি গুরুত্তপুর্ন বিষয়, যেটি সরকারি চাকুরীর জন্য অত্যন্ত গুরুত্তপুর্ন।
৩. সরকারি চাকুরীর পরীক্ষার ক্ষেত্রে একটি বিকল্প বিষয় হিসাবেও এটিকে নেওয়া যায়।
৪. ইতিহাস কে শোধ স্তরে পড়াশোনা করলে মহাবিধ্যালায় / বিশ্যবিদ্যালয় স্তরে শিক্ষকতা করার সুযোগ পাওয়া যায়।

ইতিহাস নিয়ে পড়ার ভবিষ্যৎ কি ?

যারা পড়াতে চান তাঁদের জন্য ইতিহাস একটা বড় ক্ষেত্র। এ রাজ্যের প্রায় সব কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়েই ইতিহাস রয়েছে। ফলে রয়েছে সে-সব জায়গায় পড়ানোর সুযোগ। তার জন্য ৫৫ শতাংশ নম্বর পেয়ে ইতিহাসে MA পাশ করতে হবে। তবে তফশিলি জাতি বা উপজাতিদের ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ নম্বর পেলেই চলবে। তারপর NET ( National Eligibility Test) বা WB SET (West Bengal State Eligibility Test) উত্তীর্ণ হতে হবে। এরপর পশ্চিমবঙ্গ কলেজ সার্ভিস কমিশন বা পাবলিক সার্ভিস কমিশনের বিজ্ঞাপন বেরোলে আবেদন করা যাবে।

NET-এ জুনিয়র রিসার্চ ফেলোশিপ পেলে, গবেষণা করার জন্য বৃত্তি পাওয়া যায়। আর NET, Junior Research Fellowship না পেলেও মিলতে পারে অন্য গবেষণাবৃত্তি। রয়েছে ভারত সরকারের তফশিলি জাতিভুক্তদের জন্য RGNF (Rajiv Gandhi National Fellowship) এবং সংখ্যালঘুদের জন্য MANF (Maulana Azad National Fellowship)। পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের স্বামী বিবেকানন্দ ফেলোশিপ বা বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেলোশিপ।

বিদেশে গবেষণা করার জন্যও রয়েছে বিভিন্ন গবেষণাবৃত্তি। কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানো আর গবেষণার পাশাপাশি রয়েছে স্কুলে পড়ানোর সুযোগ। ইতিহাস জেনারেল কোর্সে থাকলে মিলবে ক্লাস এইট অবধি পড়ানোর সুযোগ, ইতিহাসে অনার্স থাকলে মাধ্যমিক অবধি এবং MA-র ক্ষেত্রে উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে পড়ানোর সুযোগ। এখন অবশ্য তার জন্য শিক্ষক শিক্ষণের প্রশিক্ষণ নিয়ে নিতে হয়।

পড়ানোর চাকরি বাদ দিয়ে যদি প্রশাসনিক চাকরির দিকে তাকানো যায় তা হলে দেখা যাবে সেখানেও ইতিহাস-পড়ুয়াদের জন্য রয়েছে বড় সুযোগ। WBCS-এর প্রিলিমিনারি অর্থাৎ প্রাথমিক পর্বের জন্য যে ২০০ নম্বরের পরীক্ষা হয় তার মধ্যে ২৫ নম্বর রয়েছে ভারতের ইতিহাসে, ২৫ স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসের জন্য। আর ভারতীয় অর্থনীতি ও রাজনীতির জন্য যে ২৫ নম্বর রয়েছে তাতেও থাকে ইতিহাসের প্রশ্ন।

ইতিহাস নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন

★ ইতিহাস বিষয় নিয়ে অনার্স পড়ার জন্য যোগ্যতা কি লাগে?
উত্তরঃ আপনি যে গ্রুপের স্টুডেন্ট হোন না কেন, আপনি চাইলে অনার্সে ইতিহাস নিয়ে অনার্স পড়তে পারবেন। তবে মানবিক বিভাগের স্টুডেন্ট হলে আপনার জন্য তুলনামূলক বেশি সুবিধি হবে।

★ ইতিহাস নিয়ে অনার্স পড়া কি সহজ নাকি কঠিন?
উত্তরঃ মানবিক বিভাগের প্রতিটি বিষয়েই অনার্স পড়া তুলনামূলক সহজ। ইতিহাস বিষয়টি থিওরেটিকাল। এই বিষয়ে পড়া অনেকটাই সহজ। অনেকে বলে সাল তারিখ মনে রাখতে হয়। তবে অংকের সূত্র মনে রাখার চেয়ে ইতিহাসের সাল মনে রাখা সহজ।

★ ইতিহাস বিষয়ে অনার্স পড়ে ব্যাংকে জব করা যায়?
উত্তরঃ যেহেতু ব্যাংকের জব বিবিএ স্টুডেন্ট অগ্রাধিকার পায় সেহেতু সেখানে বিবিএ কিছু একাউন্টিং ট্রামে আপনাকে দক্ষতার পরিচয় দেখাতে হবে। পাশাপাশি আপনাকে গনিতে ভালো করতে হবে। আপনি আপনার দক্ষতা ও যোগ্যতার প্রমান দেখাতে পারলে ইতিহাস নিয়ে পড়েও ব্যাংকে চাকরি করতে পারবেন।

★ ইতিহাস নিয়ে অনার্স পড়ে ক্যারিয়ার কি?
উত্তরঃ ইতিহাস নিয়ে অনার্স পড়ে আপনি স্কুল বা কলেজের শিক্ষক হিসেবে ভালো ক্যারিয়ার গড়তে পারেন। তাছাড়া বিভিন্ন সামাজিক সেচ্ছাসেবী সংগঠন ও এনজিওতে ইতিহাস বিষয়ে অনার্স পাশ ব্যাক্তিকে অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে।

★ ইতিহাস বিষয়ে পড়ে কি বিসিএস দেয়া যায়?
উত্তরঃ অবশ্যই। ইতিহাস বিষয়ে অনার্স পড়ে আপনি বিসিএস দিতে পারবেন। অনেকেই ইতিহাস নিয়ে ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে এখন বিসিএস ক্যাডার।

★ ইতিহাস নিয়ে পড়ে কি বিদেশে উচ্চশিক্ষার জন্য যাওয়া যায়?
উত্তরঃ হ্যাঁ,আপনি ভালো কোন কোর্স করে ইতিহাস নিয়ে পড়েও বিদেশে যেতে পারেন।

★ ইতিহাস ভালো নাকি সমাজকর্ম ?
উত্তরঃ অনেকেই ইতিহাস নিয়ে পড়বে নাকি সমাজকর্মে পড়বে এই নিয়ে দ্বিধায় পড়ে যায়। আসলে ইতিহাস আর সমাজকর্ম দুটো কাছাকাছি বিষয়।

★ ইতিহাস বিষয়ে অনার্স পড়ে কি ভালো ফলাফল করা যায়?
উত্তরঃ আপনার হাতের লিখা যদি সুন্দর ও দ্রুত হয় আর আপনি যদি গুছিয়ে সুন্দরভাবে লিখতে পারেন তাহলে আপনি ইতিহাস নিয়ে পড়েও ভালো সিজিপিএ তুলতে পারবেন।

★ সব বিশ্ববিদ্যালয়ে কি ইতিহাস নিয়ে অনার্স পড়া যায়?
উত্তরঃ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় সহ প্রায় সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাস বিষয়ে অনার্স পড়ানো হয়।

আশাকরি ইতিহাস বিষয়ে অনার্স পড়া নিয়ে ও ক্যারিয়ার নিয়ে আপনার মনে যা যা প্রশ্ন ছিল সবগুলোর উত্তর আপনি পেয়েছেন। তারপরেও যদি কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে নিচের কমেন্ট বক্সে আপনার প্রশ্ন করতে পারেন।

শুভ কামনা

আজকের ইতিহাস নিয়ে পড়ার  ভবিষ্যৎআর্টিকেলের এখানেই ইতি করতে হচ্ছে বা সমাপ্ত করতে হচ্ছে আসলে আপনাদের অনেক ধৈর্য্য আছে  আশাকরি । আপনারা সহযোগিতা করতেছেন আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ আর যদি কোন ভুল ত্রুটি হয়ে থাকে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন 😌আর আমাকে কমেন্ট করবেন✍ কেমন হয়েছে বা আপনার কতটুকু উপকার এ  এসেছে বা আপনার কোন ধরনের আর্টিকেল প্রয়োজন বা আপনাকে কিভাবে আমি আরো টিপস  দিয়ে সাহায্য করতে পারি আপনি আমাকে ইমেইল করতে পারেন এখানে লাইভ চ্যাট করতে পারেন 

আর আমার পূর্ববর্তী আর্টিকেলগুলো দেখে আসতে পারেন সাথে সি প্যানেল পরিচিতি পার্ট ১ম টাও আশাকরি অনেক হিরো হয়ে যাবেন 🥰আমার বিশ্বাস ।আশাকরি আপনারা সাথে থাকবেন এই বলে আমি বিদায় নিচ্ছি  সবাই ভাল থাকেন , সুস্থ থাকেন আসসালামু আলাইকুম ,আল্লাহ হাফেজ  ।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *