ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবাের্ড পরিচিতি পার্ট ২

ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড পরিচিতি পার্ট ২ ও গুরুত্বপূর্ণ টুলস

আসসালামু আলাইকুম আশা করি সবাই ভালো আছেন । আমিও আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি । আজকে আপনাদের জন্য নিয়ে আসলাম খুব গুরুত্বপূর্ণ আরেকটা টপিক ,হ্যাঁ অবশ্যই , গুরুত্বপূর্ণ হবে,  এখন দেখার পালা সেটা হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড   পরিচিতি পার্ট ২ এবং ব্যাবহার   নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো মানে পরিচিত হব সবকিছু নিয়ে । কোথায় কি আছে ।   আপনারা প্রথম থেকে  সুন্দরতা দেখবেন ও পড়বেন ।আশা করি   বুঝতে পারবেন । তো চলুন শুরু করা যাক । 

আর যারা আমার এর আগের  পোষ্টটি দেখেছেন তাদেরকে অসংখ্য ধন্যবাদ যারা দেখেননি দেখে আসতে পারেন এখানে ক্লিক করে ধন্যবাদ ।

ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবাের্ড লগইন

ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবাের্ড লগইন  কিভাবে করতে হয় আমি যদিও এর আগে দেখিয়েছি তাও আরেকবার দেখিয়ে  দিচ্ছি । ওয়েবসাইটের বিষয়বস্তু ব্যবস্থাপনার জনপ্রিয় সফটওয়্যার ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করার সব কাজই এর ড্যাশবাের্ড থেকে করতে হয়। ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টল করার পর ওয়ার্ডপ্রেসে লগ-ইন করে যে পেজটি দেখা যায়, সেটিই হলাে ওয়ার্ডপ্রেসের ড্যাশবাের্ড।

ড্যাশবাের্ড-এ লগ ইন করতে আপনার ওয়েবসাইটের অ্যাড্রেস এর পর লিখুন /wp-admin. মানে আপনার ওয়েবসাইট যদি হয় https://developerremo.xyz/  তাহলে আপনার শেষে  লিখতে হবে ‘wp-admin’ এই অ্যাড্রেস এ গেলে আপনি  একটা পেজ পাবেন।সেখানে ইউজারনেম আর পাসওয়ার্ড দিয়ে লগ ইন করলেই পেয়ে যাবেন আপনার ওয়েবসাইটের ড্যাশবাের্ড। এই ড্যাশবাের্ড থেকেই আপনি আপনার ওয়েবসাইটের সমস্ত কিছু নিয়ন্ত্রন করতে পারবেন। আপনি যখন আপনার ব্লগের এডমিনিস্ট্রেশন এরিয়াতে লগইন করবেন তখন প্রথম যে স্ক্রিনটি দেখতে পাবেন তাই হলাে ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবাের্ড যার মাধ্যমে ওয়েবসাইটের অভারভিউ প্রদর্শিত হবে।ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবাের্ড হলাে গ্যাজেটস(gadgets) এর সংগ্রহ যা বিভিন্ন তথ্য সরবরাহ করে এবং আপনার ওয়েবসাইটে কি ঘটেছে তার ওভারভিউ দেখায়।

ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড পরিচিতি পার্ট ২

ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড পরিচিতি পার্ট ২ তে আমরা দেখব  প্লাগিনের পর  থেকে এর আগের গুলো আমি অবশ্যই দেখিয়েছিলাম   আশা করি  আপনারা দেখেছেন না দেখলে দেখে আসতে পারেন । চলুন শুরু করা যাক প্লাগিন এর পর থেকে আমরা আজ শুরু করি   তো শেষ পর্যন্ত থাকবেন  আশা করি খুব মজাদার হবে  😍

wordpress Users

wordpress users

এই সেকশনে আমরা ওয়ার্ডপ্রেসে ব্যবহারকারীর ভূমিকা(Roles) সম্পর্কে জানবাে। ওয়ার্ডপ্রেসে প্রত্যেক ব্যবহারকারীর কিছু নিজস্ব ভূমিকা( Roles) থাকে৷ ভূমিকা( Roles ) বলতে ব্যবহারকারীকে কি কি বিষয়ে অনুমতি দেওয়া তা বুঝায়। যেমন- কোনাে ব্যবহারকারীকে ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া। নিম্নে ওয়ার্ডপ্রেসে ব্যবহৃত পূর্ব নির্ধারিত ভুমিকাসমূহ(Roles) আলােচনা করা হলােঃ

wordpress Users ==>Administrator

  1. প্রশাসক( Administrator ); এডমিনিস্ট্রেটর সর্বাধিকার সম্পন্ন। সুতরাং একজন এডমিন ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে সবকিছুই করার অধিকার রাখে। যেমন- অধিক এডমিন তৈরি, ব্যবহারকারীর ভুমিকা নির্ধারণ, ব্যবহারকারীকে আমন্ত্রন জানানাে এবং ব্যবহারকারীকে বাদ দেওয়া ইত্যাদি৷

wordpress Users ==>Editor

  1. সম্পাদক( Editor ); একজন এডিটরের সকল ধরনের পােষ্ট, পেজ, কমেন্ট,ক্যাটাগরি, ট্যাগ এবং লিংকে প্রবেশাধিকার(Access) থাকে। সে যেকোনাে পােস্ট বা পেজ তৈরি, প্রকাশ(Publish), এডিট এবং ডিলেট করতে পারে।

wordpress Users ==>Author

  1. লেখক( Author ); একজন অথর শুধুমাত্র পােষ্ট লেখা, ছবি আপলােড করা, নিজেরপােষ্ট এডিট এবং প্রকাশ করতে পারে।

wordpress Users ==>Contributor

  1. কন্ট্রিবিউটর( Contributor ); একজন কন্ট্রিবিউটর শুধুমাত্র তার নিজের পােষ্ট প্রকাশ না হওয়া পর্যন্ত সেই পােস্টে লিখতে এবং পরিবর্তন আনতে পারে। সে শুধুমাত্র পােস্ট বা পেজ তৈরি করতে পারে কিন্তু এগুলাে প্রকাশ করতে পারে না। সে ছবি/ফাইলও আপলােড করতে পারে না। কিন্তু আপনার সাইটের স্ট্যাটাস দেখতে পারে। তাদের পােষ্ট এডমিনিস্ট্রেটর( Administrator) কর্তৃক রিভিউ ছাড়া প্রকাশ হয়। রিভিউ শেষে এডমিন পােষ্ট প্রকাশ করলে কন্ট্রিবিউটর সেই পােষ্টে আর কোনাে পরিবর্তন করতে পারে না।

wordpress Users ==>Follower

5, ফলােয়ার( Follower ); একজন ফলােয়ার শুধুমাত্র পােষ্ট পড়তে এবং পােষ্টে কমেন্ট করতে পারে। ফলােয়ার হলাে তারা যারা আপনার সাইটের আপডেট তথ্য পাওয়ার জন্য আপনার সাইটে সাইন-ইন করে।

wordpress Users ==>Viewer

  1. ভিউয়ার( Viewer ): একজন ভিউয়ার শুধুমাত্র পােষ্ট দেখতে পারে। সে পােষ্ট এডিট করতে পারে না কিন্তু কমেন্ট করতে পারে।

WordPress user

এখন আমরা জানবাে ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগ বা ওয়েবসাইটে কিভাবে ব্যবহারকারী যুক্ত করা যায়। যখন ব্যবহারকারী ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগ বা ওয়েবসাইটে রেজিস্টার করে, তখন আপনি একটি ই-মেইল নােটিফিকেশন পাবেন। যাতে আপনি নতুন ইউজার রেজিষ্ট্রেশন সম্পর্কে জানতে পারেন এবং ব্যবহারকারীর ভূমিকা নির্ধারন করতে পারেন। ওয়ার্ডপ্রেসে নিম্নের ধাপ অবলম্বন করে ব্যবহারকারী তৈরি করুন।

WordPress user add

add user

ওয়ার্ডপ্রেস  ইউজার অ্যাড করার আগে আরেকটু বিষয়ে আপনাদের ছিনিয়ে দি এখানে দেখতে পাচ্ছেন , তো এইখনে দেখতে পারতেছেন   অনেক অপশন দেখা যায় আমিও ইউজার তাই একটি  দেখা যাচ্ছে ।  এখানে আমার রুল টা অ্যাডমিনিস্ট্রেটর দেখা যাচ্ছে কারণ এখানে  আমি আর কেউ নাই এখানে যদি কেও  থাকতো তাহলে আমরা ফিল্টার করে  সার্চ করে দেখতে পারতাম  ।তো এখানে চাইলে আমার রোল টা পরিবর্তন করে দিতে পারি  তারপর এপ্লাই করে দিতে পারেন তো এখান থেকেও  আপনারা  চাইলে নতুন ইউজার এড করতে পারে্ন আপনার ওপরে দেখতে পাচ্ছন  অবশ্যই । তো চলুন আমরা একটা নিউ ইউজার এড করি  এবং  কিভাবে এড করা হয় সেটা দেখি আপনার যেকোনো জায়গায় অ্যাড নিউ তে ক্লিক করলে কাজ করতে পারেন  একই জায়গায় যাবে তো চলুন ।

WordPress users all role

অ্যাড নিউ ইউজার এ ক্লিক করার পর আপনারা  এধরনের একটা পেজ  দেখতে পারবেন তখন অনেকগুলো ফিল দেখতে পারবেন সেখানে আপনারা নাম , ইমেইল , পাসওয়ার্ড দিতে  হবে  তখন যেগুলোর রুল আছে তা থেকে দেখায়  দিতে হবে তারপর আর  অ্যাড নিউ ইউজার  ক্লিক করলে যাকে এড করে দিয়েছন ইমেইল দিয়ে  দিয়েছেন তার কাছে একটা ইমেইল চলে যাবে তখন আপনি আপনার পাসওয়ার্ডটি ওকে দিবেন  কোন রুলের  কি কাজ সেটা অবশ্য আমি    দেখিয়েছি  বুঝতে পারছেন  আশা করি তো মূলত ইউজার এড করার এটাই মূলত কাজ  । 

WordPress Users profile

তারপর আপনারা দেখতে পাচ্ছেন ইউজার এর আন্ডারে আরেকটা অপশন সেট  হলো  প্রোফাইল । প্রোফাইল মানে   আপনারা তো  অবশ্য বুঝেন  ঠিক  ফেসবুকের মত  কি রকম হবে ফেসবুকের প্রোফাইল টা কেমন হবে তারপর কালার গুলো কেমন হবে এই আরকি তো আমরা এখান থেকে চাইলে কালার চেঞ্জ করে দিতে পারেন তারপর নিচে গেলে  আরো অনেক অপশন দেখতে পারেন যেগুলো মূলত বেশি লাগে না চাইলেও  পরিবর্তন করতে  পারেন । আপনারা সেভ করে দিবেন নিচে গিয়ে  ।  উপরে টুলবার গুলো বন্ধ করে দিতে পারেন  চাইলে তারপর আরেকটা  গুরুত্বপূর্ণ অপশন সেটা হচ্ছে ভিজুয়াল এডিটর যে এডিটর দিয়ে কাজ করি ডিফল্ট সেটা , সেটা আমরা চাইলে সেটা ডিজেবল করে রাখতে পারি উপর  এ মার্ক করে  দিয়ে দিলে হয়ে যাবে ।

WordPress Tools

তারপর আসেন টুলস এ এইখানে  হোবার বা ক্লিক করলে  অনেকগুলো অপশন মূলত এখানে দেখা যায় ,যেখানে   কিছু সিক্রেট বিষয় থাকে ওয়েবসাইটের  সেগুলো   আপ্নারা  পরিবর্তন করতে পারেন ।  সংক্ষেপে আমি আপনাদের একটা একটা বলার চেষ্টা করতেছি । Let’s get started …….

WordPress Tools ==>Available Tools

 মূলত এইখানে  ওয়েবসাইটের কি কি প্লাগইন বা থিম আছে সেগুলোর একটা নমুনা দেখায় কোন কোন প্লাগিন থিম একটিভ আছে সেগুলোর নমুনা দেখায় এবং আরো অনেক অপশন আছে ।

WordPress Tools ==> Import

তারপর ইমপোর্ট আমরা চাইলে কারো  থেকে আমরা কোন কিছু কন্টেন্ট  আনতে পারি  ইমেইল দিয়ে ।

WordPress Tools ==> Export

তারপর এক্সপোর্ট মানে আমরা তো বুঝি  , আমরা চাইলে নিজের  ওয়েবসাইট থেকে কোন কিছু অন্যকে শেয়ার করতে পারি ইমেইল দিয়ে ।

WordPress Tools ==> Site Health

সাইট হেলথ মূলত আপনারা আপনাদের ওয়েবসাইটের কোন সমস্যা থাকলে বা কোন বাগস দেখা  দিলে বা কোন আপডেটের কোন কিছু ওয়ার্নিং থাকলে সেগুলো আপনারা এখানে দেখতে পারবেন ।

WordPress Tools ==> Export Personal Data

এক্সপোর্ট পার্সোনাল ডেটা অপশনটি আপনার ব্যবহারকারীদের জন্য ব্যক্তিগত ডেটা এক্সপোর্ট করতে ব্যবহৃত হয়। … একবার অনুরোধ নিশ্চিত হয়ে গেলে, আপনি তারপর একটি জিপ ফাইল তৈরি করতে পারেন যা আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের মধ্যে সেই নির্দিষ্ট ব্যবহারকারীর জন্য বিদ্যমান ব্যক্তিগত তথ্য ধারণ করে।

WordPress Tools ==> Erase Personal Data

এই অপশন দিয়ে মূলত  কোন কিছু মুছে ফেলতে পারবেন সাইটের  তো কিভাবে কি করে মুছে আমরা সেটা একটু দেখেনি চলুন ।

How to easily Erase Personal Data in WordPress Bangla

 
  1. Log in to WordPress as an Administrator.
  2. Click on Tools.
  3. Click on Erase Personal Data.
  4. Click in the Username or email address field and type in the user or email address for the user requesting the removal of their personal data.
  5. Click on Send Request.
  6. Once the Username or email address is sent, an entry for that user will be added to the table at the bottom of the page. The Requester (username or email) will appear with a status of Pending. An email is automatically sent to the user and they must click on the link in the email to confirm the data erasure.
  7. Once the User has confirmed the request by clicking on the link, the Status will be updated to Confirmed. The user will see a thank you message confirming the erasure request. There are two options to erase data. To erase data for a confirmed user, simply look in the Next Steps column for that user and click on Erase Personal Data.

WordPress Setting

wordpress setting

এখন আসেন সেটিং এর বেলায় মূলত এখানে আমাদের অনেক কাজ হয়ে থাকে বা অনেক সেটিং করা লাগে তো আমরা এক একটা সেটিং আমরা একটা একটা করে দেখে  আসি চলুন  । আমরা এক ঝলকে দেখে আসি কোনটার কী কাজ বা কোনটার কি  সেটিং।

WordPress Setting ==>General

আপনাদের এখানে যদি মেম্বারশিপ সিস্টেম থাকে তাইলে  anyone can register এই অপশন টা অন করে দিবেন যেন যে কেউ রেজিস্টার করতে পারে  আশা করি  বুঝতে পারছেন ।তারপর  এখানে আপনাদের সাইটের নাম  বা টেগলাইন এগুলো সব কিছু পরিবর্তন করতে পারবেন ইমেইলও পরিবর্তন করতে পারেন । আপনারা ওয়ার্ডপ্রেস এর ভাষা পরিবর্তন করতে পারবেন মূলত এই জেনারেল সেটিং থেকে অনেক কিছু করা যায় তারপর  সেভ দিয়ে দিবেন ।

wordpress General

WordPress Setting ==>Writing

লেখার সেটিংস আপনার সাইটের সামগ্রীর ক্ষেত্রে বিভিন্ন বিকল্প কনফিগার করে। সেটিংসের মধ্যে রয়েছে ডিফল্ট পোস্ট ক্যাটাগরি, ডিফল্ট পোস্ট ফরম্যাট (যদি আপনার থিম দ্বারা সমর্থিত হয়) এবং লিঙ্ক ম্যানেজার প্লাগইন ইনস্টল করা থাকে, ডিফল্ট লিঙ্ক ক্যাটাগরি অন্তর্ভুক্ত।

আপনি যদি ক্লাসিক এডিটর প্লাগইন ইনস্টল করার সিদ্ধান্ত নেন, যা আপনাকে ব্লক এডিটরের পরিবর্তে ক্লাসিক এডিটর ব্যবহার করতে দেয়, আপনি এই রাইটিং সেটিংস পৃষ্ঠায় দুটি অতিরিক্ত বিকল্প দেখতে পাবেন। সমস্ত ব্যবহারকারীর জন্য ডিফল্ট সম্পাদক বিকল্পটি আপনাকে ব্যবহারের জন্য ডিফল্ট সম্পাদক নির্বাচন করতে দেয়। এটি হতে পারে ক্লাসিক এডিটর অথবা নতুন ব্লক এডিটর। আপনি যদি ক্লাসিক এডিটর প্লাগইন ইনস্টল করে থাকেন তাহলে আপনি সম্ভবত এই বিকল্পের জন্য ক্লাসিক এডিটর রেডিও বাটন নির্বাচন করতে চান। যদি আপনার সাইটে একাধিক এডিটর থাকে, তাহলে ব্যবহারকারীদের সম্পাদকদের স্যুইচ করার অনুমতি দিন বিকল্পটি আপনার ব্যবহারকারীদের কোন সম্পাদককে ব্যবহার করতে চান তা নির্বাচন করতে দেয়। আপনি যদি আপনার ব্যবহারকারীদের সম্পাদকদের স্যুইচ করার অনুমতি দেন, তাহলে তাদের স্বতন্ত্র ব্যবহারকারী প্রোফাইল পৃষ্ঠাটি একটি নতুন বিকল্প দেখাবে যা তাদের ক্লাসিক এডিটর এবং ব্লক এডিটরের মধ্যে নির্বাচন করতে দেয়। আপনি যদি আপনার ব্যবহারকারীদের কোন সম্পাদক ব্যবহার করতে চান তা নির্বাচন করার অনুমতি দেন তবে বিশেষ যত্ন নেওয়া উচিত। যদি একজন ব্যবহারকারী ব্লক এডিটর দিয়ে একটি পৃষ্ঠা বা পোস্ট সম্পাদনা করে এবং তারপর অন্য ব্যবহারকারী সেই পৃষ্ঠা/পোস্টটি পরে ক্লাসিক এডিটর দিয়ে সম্পাদনা করে, তাহলে আপনি আপনার বিষয়বস্তু নিয়ে সমস্যা সৃষ্টি করতে পারেন, বিশেষ করে যদি প্রথম ব্যবহারকারী পৃষ্ঠাটি পুনরায় সম্পাদনা করেন আবার ব্লক সম্পাদকের সাথে। ব্লক সম্পাদকের মধ্যে আপনি সামগ্রী হারাতে বা ব্লকগুলি ভাঙ্গার একটি খুব ভাল সুযোগ রয়েছে। যদি ব্লক এডিটরের সাথে একটি পেজ যোগ করা হয়, অথবা একটি বিদ্যমান পেজ ব্লকে রূপান্তরিত করা হয়, তাহলে সেই ব্লক এডিটরটি সেই পেজটি এডিট করার জন্য ব্যবহার করা হলে ভাল। একইভাবে, যদি ক্লাসিক এডিটরের সাথে একটি পেজ যোগ করা হয়, তাহলে সেই পেজটি শুধুমাত্র ক্লাসিক এডিটর দিয়ে এডিট করা ভাল।

WordPress Setting ==>Reading

wordpress Reading

মূলত এখানে প্রধান কাজ  যা আপনাদের ব্লগ পোস্টে বা  ওয়েবসাইটের মেন হোম পেজ টা কোন ধরনের হবে  সেটা আপনারা এখান থেকে দেখিয়ে দিতে পারবেন তো মূলত মূলতএইটা  প্রধান কাজ তারপর  চাইলে ব্লগ পোস্টে প্রতিটা পেইজে কয়টা করে পোস্ট শো করবে  সেটাও এখান থেকে দেখায় দিতে পারবেন ।

WordPress Setting ==>Discussion

wordpress Discussion

নিম্নে Discussion settings এর প্রতিটি ফিল্ড সম্পর্কে আলােচনা করা হলাে।

Default article settings: আপনার তৈরি করা নতুন পেজ বা পােষ্ট এর জন্য এটা ডিফল্ট সেটিংস। এটার আরও তিনটি সেটিং আছে। সেগুলাে হলােঃ o Attempt to notify any blogs linked to from the article: gta আপনি আর্টিক্যাল প্রকাশ করবেন তখন এটা অন্যান্য ব্লগে নােটিফিকেশন পাঠাবে।Allow link notifications from other blogs (pingbacks and trackbacks): অন্য ব্লগ থেকে পিংস(pings) গ্রহন করে।Allow people to post comments on new articles: gi orfoest ব্যবহার করে আপনি আপনার আর্টিকেলে অন্যদেরকে কমেন্ট করারঅনুমােদন দিতে/না দিতে পারেন। আপনি আপনার ইচ্ছামত পৃথক আর্টিক্যালের জন্যও সেটিংস পরিবর্তন করতে পারেন। Other Comment Settings – এই সেটিংস-এ নিচের অপশনগুলাে রয়েছেঃ ০ Comment author must fill out name and e-mail: যখন আপনি এই বক্স চেক করবেন তখন ডিজিটরদের নাম এবং ই-মেইল এড্রেস পূরণ করা বাধ্যতামূলক। Users must be registered and logged in to Comment: যখন আপনি | এই বক্স চেক করবেন তখন শুধুমাত্র রেজিস্ট্রার্ড ভিজিটররাই কমেন্ট করতে পারবে। আর যদি চেক না করেন তাহলে যে কেউ যেকোনাে সংখ্যক কমেন্ট করতে পারবে।Automatically close comments on articles older than days: ai অপশন এর মাধ্যমে আপনি আপনার ইচ্ছা অনুযায়ী শুধুমাত্র বিশেষ সময়ের কমেন্টগুলাে রাখতে পারেন। Enable threaded (nested) Comments: যখন আপনি এই অপশনটি চেক করবেন তখন ভিজিটর রিপ্লাই দিতে অথবা আলােচনা করতে পারবে এবং তারা সাড়াও পাবে। Break comments into pages with top-level comments per page and the page displayed by default: আপনার পেজে যদি প্রচুর পরিমান কমেন্ট থাকে তাহলে আপনি এই চেকবক্স চেক করে কমেন্টগুলােকে বিভিন্ন পেজে বিভক্ত করতে পারবেন।Comments should be displayed with the comments at the top of each page: আপনি কমেন্টগুলকে এসেন্ডিং(ascending) অথবা ডিসেন্ডিং অর্ডারে সাজাতে পারবেন। Email me whenever: এই সেটিংস এর দুটি অপশন আছে। যেমনঃ Anyone posts a comment: আপনি যখন এই চেকবক্স চেক করবেন তখন | লেখক তার পােষ্টের প্রতিটি সিঙ্গেল কমেন্টের জন্য একটি ই-মেইল পাবে।| A comment is held for moderation: এডমিন কর্তৃক অনুমােদন না হওয়া পর্যন্ত আপনি যদি আপনার কমেন্ট আপডেট করতে না চান তাহলে এটাব্যবহৃত হয়।

• Before a comment appears: এই সেটিংস এর মাধ্যমে আপনি আপনার পােষ্ট নিয়ন্ত্রন করতে পারবেন। এটারও দুটি সেটিংস রয়েছে। যেমনঃ ০ Comment must be manually approved: আপনি যদি এই চেকবক্স চেককরেন তাহলে শুধুমাত্র এডমিন দ্বারা অনুমােদিত কমেন্টগুলােই পােষ্ট বা পেজে প্রদর্শিত হবে।Comment author must have a previously approved comment: aচেকবক্স চেক করলে আপনি এমন লেখকের কমেন্ট অনুমােদন করতে পারবেন যার কমেন্ট ইতিপূর্বে ছিল এবং তার এই ই-মেইল এড্রেস এবং পূর্বের কমেন্টের ই-মেইল এড্রেস একই হতে হবে। অন্যথায় কমেন্টটি অনুমােদনের অপেক্ষায় আটকে থাকবে।Comment Moderation: এক্ষেত্রে শুধুমাত্র নির্দিষ্ট সংখ্যক লিংক থাকবে। যেগুলােতে কমেন্ট গ্রহণযােগ্য।Comment Blacklist: এখানে আপনি আপনার নিজস্ব স্প্যাম ওয়ার্ড(spam Word)গুলাে ইনপুট দিতে পারেন যেগুলাে আপনার ভিজিটর comments, URL, e-mail ইত্যাদির মধ্যে ইনপুট দিতে পারবে না। পরবর্তীতে এগুলাে কমেন্টকে ফিল্টার করবে।

wordpress disscusson

Avatars: Avatar হলাে একটি ছােট ছবি যা ড্যাশবাের্ড স্ক্রিনের উপররের দিকে ডান পাশের কর্নারে আপনার নামের পাশে প্রদর্শিত হয়। এটা দেখতে আপনার প্রােফাইল ছবির মতই। ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে Avatar সেট করার অপশনগুলাে নিম্নে তুলে ধরা হলােঃ ০ Avatar Display: যখন এটা চেক করা হবে তখন আপনার এভাটার আপনারনাম এর পাশে প্রদর্শিত হবে।Maximum rating: এটা ছাড়া এভাটার এর জন্য আরাে চারটি অপশন রয়েছে যেগুলোর মধ্যে যেকোনাে একটি অপশন আপনি ব্যবহার করতে পারবেন। এগুলাে হলাে G, PG, R এবং X। এটা হলাে বয়স সেকশন যার মাধ্যমে আপনি নির্বাচন করতে পারবেন কোন ধরণের ভিজিটর এর কাছে আপনার পােস্ট প্রদর্শিত হবে।Default Avatar: এই অপশনের মাধ্যমেও বিভিন্ন ধরণের এভাতার সেট করা যায়। ভিজিটর এর ই-মেইল এড্রেস অনুযায়ীও আপনি এই সকল এভাতার সেট করতে পারেন।

ধাপ ৩: পরিবর্তনগুলাে সংরক্ষন করার জন্য Save Changes বাটনে ক্লিক করুন।

WordPress Setting ==>Media

wordpress Media

মিডিয়াতে আপনারা ওয়ার্ডপ্রেসের ইমেজের অপশন   এখান থেকে অপশনগুলো পাবেন আপনারা এখানে  থেকে পরিবর্তন করে দিতে পারেন তারপর মাস বা বছর অনুযায়ী আপনারা যদি  কোন ইমেজের ফোল্ডার করতে চান তাহলে নিচের অপশন টা টিক মার্ক দিয়ে রাখবেন যেটা আমার টিক মার্ক দেওয়া আছে ।

WordPress Setting ==>Permalinks

wordpress Permalinks

ওয়ার্ডপ্রেসের আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ সেটিং  হলো  পার্মালিংক আমরা অনেকেই আছি ওয়ার্ডপ্রেস সেটাপ করার সাথে সাথে এইটা  পরিবর্তন করে দি । কারন  এটা পরিবর্তন করা তাকে অন্য ভাবে  এখন যেটা দেখতে  পারতেছেন  এটা  হচ্ছে যে আমি পরিবর্তন  করেছি তো এটা মূলত থাকে না অন্য আরেকটা । এইখানে কোন ইউ আর এল এর কি কাজ সেই  কাজগুলো আপনাদের তীর দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছি যে অনুযায়ী লিংক গঠিত হবে । আশা করি  বুঝতে পারছেন । তো  আমার ইউ আর এল এর মত  আপনারা ওইটা করে দিবেন তারপর সেভ দিবেন নিচে গিয়ে । 

WordPress Setting ==>Privacy

এটাও একটা গুরুত্বপূর্ণ অপশন আপনার ওয়েবসাইটের জন্যে আরেকটা মেইন পেজ  সেটা হচ্ছে যে প্রাইভেসি পলিসি আপনারা চাইলে প্রাইভেসি পলিসি পেজটা এখান থেকেও জেনারেট করতে পারেন বা আপনারা চাইলে অন্য ভাবেও  করতে পারেন তো আপনাদের যদি কোন পেজ  থাকে  সেটা এখানেও দেখায় দিতে পারেন তো মূলত এটাই কাজ ।

Collapse menu

wordpress Collapse menu

তো সর্বশেষ আরেকটা অপশন সেটা যদিও আমি এর  আগে দেখিয়েছি তো আমি আবার বলে  দিচ্ছি সেটা মূলত কাজ  আপনারা এখন যেভাবে দেখতে পারছেন ড্যাসবোর্ডটা  বামদিকে  তা ঠিক এভাবেই শো করবে আমরা ওইকাহ্নে ক্লিক করলে । যদি আবারো কলাপ্স মেনুতে ক্লিক করেন ঠিক আগের মতো নাম সহ মেনুগুলা  দেখা যাবে । This is it .

Congratulations And Thanks

তো ওয়ার্ডপ্রেসের খুঁটিনাটি নিয়ের সর্বশেষ  এই  পর্যন্তই  ।আশা করি আপনারা এই ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে অনেক কিছু জেনে হিরো হয়ে গেছেন যদি হয়ে থাকেন বা কোন কিছু বুঝে  থাকেন অবশ্যই আমাকে জানাতে ভুলবেন না ।তো দেখা হচ্ছে পরবর্তী কোন অন্য একটা টপিকে সবাই শেষ  পর্যন্ত আশা করি  দেখেছেন এবং যদি বুঝতে কষ্ট হয় বা কোন কিছু জানার থাকে আমাকে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন আর আমাকে অবশ্যই এই পার্টটাও কেমন হয়েছে সেটাও আমাকে জানাবেন আমাকে কমেন্ট করবেন অবশ্যই । আর আমাকে এখানে লাইভ  এ মেসেজ  করতে পারেন । তো সবাই ভাল থাকেন , সুস্থ থাকেন ।আসসালামু আলাইকুম ।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *